ইসলামী সূত্র

  • features

    1. home

    2. article

    3. সূরা

    সূরা

    সূরা
    Rate this post

    সূরা (ইংরেজি: sura, surah, surat) (আরবি: سورة) হচ্ছে ইসলআমী পরিভাষায় মুসলমানদের ধর্মগ্রন্থ কুরআনের একটি অধ্যায়ের নাম । তবে এটি সাধারণ পুস্তকের অধ্যায়ের মত নয় বরং বিশেষভাবে কেবল কুরআনের বৈশিষ্ট্যের জন্যই এর উৎপত্তি। তাই এটি প্রকৃত অর্থেই একটি কুরআনিক পরিভাষা যাকে কেবল কুরআনের দৃষ্টিকোণ থেকেই ব্যাখ্যা করা যায়। কুরআনের প্রথম সূরা হলো “আল ফাতিহা” এবং শেষ সূরার নাম “আন-নাস্”। দীর্ঘতম সূরা হলো “আল-ইমরান”। সূরা “তাওবা” ব্যতীত সকল সূরা শুরু হয়েছে বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম দিয়ে। একটি সূরা বা এর অংশবিশেষ অবতীর্ণ হওয়ার প্রেক্ষাপট বা ইতিহাসকে বলা হয় শানে নুযুল।

    কুরআনের সূরাসমূহের তালিকা

    কুরআনে সর্বমোট ১১৪ টি সূরা রয়েছে। কুরআনে সূরার অবস্থানক্রম হযরত উসমানের নেতৃত্বে নিম্নরূপ নির্ধারণ করা হয়। সূরাগুলোর নামের পাশে বন্ধনীর মধ্যে বাংলা অর্থ দেয়া আছে।

    কুরআনের সূরাসমূহের তালিকা

    কুরআনে ১১৪টি সূরা রয়েছে। এগুলো হলো:

    ১. আল ফাতিহা  (সূচনা)

    ২. আল বাকারা (বকনা-বাছুর) আন নিসা

    ৩. আল ইমরান (ইমরানের পরিবার)

    ৪. আন নিসা (নারী)

    ৫. আল মায়িদাহ (খাদ্য পরিবেশিত টেবিল)

    ৬. আল আনআম (গৃহপালিত পশু)

    ৭. আল আরাফ (উচু স্থানসমূহ),

    ৮. আল আনফাল (যুদ্ধে-লব্ধ ধনসম্পদ),

    ৯. আত তাওবাহ  (অনুশোচনা),

    ১০. ইউনুস (নবী ইউনুস),

    ১১. হুদ (নবী হুদ),

    ১২. ইউসুফ (নবী ইউসুফ),

    ১৩. আর রা’দ (বজ্রপাত),

    ১৪. ইব্রাহিম (নবী ইব্রাহিম),

    ১৫. আল হিজর (পাথুরে পাহাড়),

    ১৬. আন নাহল (মৌমাছি),

    ১৭. বনী-ইসরাঈল (ইহুদী জাতি),

    ১৮. আল কাহফ (গুহা),

    ১৯. মারইয়াম (মারইয়াম ঈসা নবীর মা)

    ২০. ত্বোয়া-হা (ত্বোয়া-হা),

    ২১. আল আম্বিয়া (নবীগণ),

    ২২. আল হজ্জ (হজ্জ),

    ২৩. আল ম,মিনুন (মুমিনগণ),

    ২৪. আন নুর (আলো),

    ২৫. আল ফুরকান (সত্য মিথ্যার পার্থক্য নির্ধারণকারী গ্রম্থ),

    ২৬. আশ শুআরা (কবিগণ),

    ২৭. আন নম্‌ল (পিপীলিকা),

    ২৮. আল কাসাস (কাহিনী),

    ২৯. আল আঙ্কাবুত (মাকড়শা),

    ৩০. আর রুম (রোমান জাতি),

    ৩১. লোক্‌মান (একজন জ্ঞানী ব্যাক্তি),

    ৩২. আস সেজদাহ্ (সিজদা),

    ৩৩. আল আহ্‌যাব (জোট),

    ৩৪. সাবা (রানী সাবা)/শেবা),

    ৩৫. ফাতির (আদি স্রষ্টা),

    ৩৬. ইয়াসীন (ইয়াসীন),

    ৩৭. আস ছাফ্‌ফাত (সারিবদ্ধভাবে দাঁড়ানো),

    ৩৮. ছা’দ (আরবি বর্ণ),

    ৩৯. আয্‌-যুমার (দলবদ্ধ জনতা),

    ৪০. আল মু’মিন (বিশ্বাসী)

    ৪১. হা-মীম সেজদাহ (সুস্পষ্ট বিবরণ),

    ৪২. আশ-শুরা (পরামর্শ),

    ৪৩. আয-যুখরুফ (সোনাদানা),

    ৪৪. আদ-দোখান (ধোঁয়া),

    ৪৫. আল জাহিয়াহ (নতজানু),

    ৪৬. আল  আহকাফ (বালুর পাহাড়),

    ৪৭. মুহাম্মদ (নবী মুহাম্মদ),

    ৪৮. আল ফাতহ  (বিজয়,মক্কা বিজয়),

    ৪৯. আল  হুজুরাত  (বাসগৃহসমুহ),

    ৫০. ক্বাফ (ক্বাফ),

    ৫১.  আয-যারিয়াত  (বিক্ষেপকারী বাতাস),

    ৫২. আত্ব তূর (পাহাড়),

    ৫৩. আন নাজম (তারা) ,

    ৫৪. আল ক্বামার (চন্দ্র)

    ৫৫. আর-রাহ্মান (পরম করুণাময়)

    ৫৬. আল   ওয়াক্বিয়াহ্‌ (নিশ্চিত ঘটনা)

    ৫৭. আল হাদীদ (লোহা)

    ৫৮. আল মুজাদালাহ  (অনুযোগকারিণী),

    ৫৯. আল হাশর (সমাবেশ),

    ৬০. আল   মুম্‌তাহিনাহ্ (নারী, যাকে পরীক্ষা করা হবে),

    ৬১. আস সাফ (সারবন্দী সৈন্যদল),

    ৬২. আল জুমুআহ  (সম্মেলন/শুক্রবার),

    ৬৩. আল মুনাফিকুন (কপট বিশ্বাসীগণ),

    ৬৪. আত তাগাবুন (মোহ অপসারণ),

    ৬৫. আত  ত্বালাক,

    ৬৬. আত   তাহ্‌রীম (নিষিদ্ধকরণ),

    ৬৭. আল   মুল্‌ক (সার্বভৌম কতৃত্ব),

    ৬৮. আল   ক্বলম (কলম),

    ৬৯. আল হাক্কাহ (নিশ্চিত সত্য),

    ৭০. আল   মাআরিজ (উন্নয়নের সোপান),

    ৭১. নূহ (নবী নূহ)

    ৭২. আল জ্বিন (জ্বিন সম্প্রদায়)

    ৭৩. আল   মুয্‌যাম্মিল (বস্ত্রাচ্ছাদনকারী)

    ৭৪. আল   মুদ্দাস্‌সির (পোশাক পরিহিত),

    ৭৫. আল  ক্বিয়ামাহ্ (পুনরু্ত্তান),

    ৭৬. আদ দাহ্‌র (মানুষ),

    ৭৭. আল মুরসালাত  (প্রেরিত পুরুষগণ),

    ৭৮. আন নাবা  (মহাসংবাদ),

    ৭৯. আন নাদিয়াত  (প্রচেষ্টাকারী),

    ৮০. আবাসা (তিনি ভ্রুকুটি করলেন),

    ৮১. আত   তাক্‌ভীর (অন্ধকারাচ্ছন্ন),

    ৮২. আল   ইন্‌ফিতার (বিদীর্ণ করা),

    ৮৩. আত   মুত্বাফ্‌ফিফীন (প্রতারণা করা),

    ৮৪. আল   ইন্‌শিকাক (খন্ড-বিখন্ড করণ),

    ৮৫. আল বুরুজ (নক্ষত্রপুন্জ),

    ৮৬. আত  তারিক্ব (রাতের আগন্তুক),

    ৮৭. আল আ’লা (সর্বোন্নত),

    ৮৮. আল গাশিয়াহ  (বিহ্বলকর ঘটনা),

    ৮৯. আল ফাজর (ভোরবেলা),

    ৯০. আল বালাদ  (নগর),

    ৯১. আশ শামস (সূর্য),

    ৯২. আল লাইল  (রাত্রি),

    ৯৩. আদ দুহা (পূর্বান্হের সুর্যকিরণ),

    ৯৪. আল  ইনশিরাহ  (বক্ষ প্রশস্তকরণ),

    ৯৫.  আত তীন  (ডুমুর),

    ৯৬. আল আলাক (রক্তপিন্ড),

    ৯৭. আল   ক্বাদর (মহিমান্বিত),

    ৯৮. আল  বাইয়্যিনাহ (সুস্পষ্ট প্রমাণ),

    ৯৯. আল যিলযাল (ভুমিকম্প),

    ১০০. আল আদিয়াত (অভিযানকারী),

    ১০১. আল   ক্বারিয়াহ (মহাসংকট),

    ১০২. আত  তাকাসুর  (প্রাচুর্যের প্রতিযোগিতা),

    ১০৩. আল আছর (আময়),

    ১০৪. আল হুমাযাহ  (পরনিন্দাকারী),

    ১০৫. আল ফীল (হাতি)  

    ১০৬. কুরাইশ (কুরাইশ গোত্র),

    ১০৭. আল মাউন  (সাহায্য-সহায়তা),

    ১০৮. আল কাওসার  (প্রাচুর্য),

    ১০৯. আল কাফিরুন  (অবিশ্বাসী গোষ্ঠী),

    ১১০. আন নাসর  (স্বর্গীয় সাহায্য),

    ১১১. আল লাহাব (জ্বলন্ত অংগার),

    ১১২. আল ইখলাস  (একত্ব)

    ১১৩. আল ফালাক (নিশিভোর)

    ১১৪.  আন- নাস  (মানবজাতি)