ইসলামী সূত্র

  • features

    1. home

    2. article

    3. সূরা রা’দের ১৮ নং আয়াতের অর্থসহ সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা

    সূরা রা’দের ১৮ নং আয়াতের অর্থসহ সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা

    সূরা রা’দের ১৮ নং আয়াতের অর্থসহ সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা
    Rate this post

    ১৮ নং আয়াতে বলা হয়েছে, ” যারা প্রতিপালকের আদেশ পালন করে তাদের জন্য উত্তম প্রতিদান রয়েছে। এবং যারা আদেশ পালন করে না তাদের কাছে যদি জগতের সব কিছু থাকতো এবং তার সাথে সমপরিমাণ আরো কিছু থাকতো তাহলে সবই শাস্তি থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য দিয়ে দিত। তাদের হিসাব হবে কঠোর এবং জাহান্নাম হবে তাদের আবাস। সেটা কতই না নিকৃষ্ট বাসস্থান।”

    এই আয়াতে বিশ্বাসী মোমিন এবং অবিশ্বাসী কাফেরদের শেষ পরিণতি সম্পর্কে বর্ণনা দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, যারা আল্লাহর নির্দেশ অনুযায়ী জীবন যাপন করেছে তাদের জন্য রয়েছে উত্তম পুরষ্কার, আর যারা আল্লাহর নির্দেশ অমান্য করে চলেছে তারা এত ভয়াবহ পরিণতির সম্মুখীন হবে যে, সে সময় তারা যদি পৃথিবীর সমপরিমাণ বা তার চেয়ে বেশী সম্পদের মালিক হয়, ঐ অবস্থা থেকে মুক্তির জন্য তারা সবই বিলিয়ে দেয়ার জন্য প্রস্তুত থাকবে। কিন্তু সে দিন তাদের কোন কথা, কোন আর্জিই গ্রহন করা হবে না। তাদের ধন সম্পদ, কোন কিছুই সেদিন তাদেরকে জাহান্নামের শাস্তির হাত থেকে রক্ষা করতে পারবে না।
    আয়াতের শেষ ভাগে বলা হয়েছে, সে দিন অবিশ্বাসী কাফেরদের কাছ থেকে কঠোর হিসাব নেওয়া হবে। হাদীস শরীফে বলা হয়েছে; যারা ইহজগতে মানুষের সাথে কঠোর আচরণ করবে কেয়ামতের দিন তাদের সাথে কঠোর আচরণ করা হবে, আর যারা দুনিয়ায় মানুষের ভুল ত্রুটি ক্ষমা সুন্দর সৃষ্টিতে দেখবে এবং নম্র আচরণ করবে কেয়ামতের দিন তাদের সাথে অনুরূপ আচরণই করা হবে।

    যারা বুদ্ধিমান তারা এই নশ্বর জীবণের জন্য সঠিক পথটাই বেছে নেয়, যে পথে রয়েছে ইহকাল ও পরকালের কল্যাণ। আর যারা এই বাস্তবতাকে উপলব্ধি করতে চায় না, যাদের চিন্তা-চেতনা নশ্বর জগতকে নিয়েই আবর্তিত হয় তাদেরকে নেহায়েত অপরিনামদর্শী ও নির্বোধ ছাড়া আর কিছু বলা যায় না।