ইসলামী সূত্র

  • features

    1. home

    2. article

    3. সূরা রা’দের ৯-১০ নং আয়াতের অনুবাদ ও সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা

    সূরা রা’দের ৯-১০ নং আয়াতের অনুবাদ ও সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা

    সূরা রা’দের ৯-১০ নং আয়াতের অনুবাদ ও সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা
    Rate this post

    ৯ এবং ১০ নং আয়াতে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন বলেছেনঃ ” যা অদৃশ্য ও যা দৃশ্যমান তিনি তা অবগত, তিনি মহান, সর্বোচ্চ মর্যাদাবান। তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি গোপনে কথা বলে এবং যে ব্যক্তি উচ্চস্বরে কথা বলে তেমনি যে রাতে আত্মগোপন করে এবং যে দিনে প্রকাশ্যে বিচরণ করে তারা সবাই সমভাবেই আল্লাহর জ্ঞানগোচর হয়।”

    আগের আয়াতের ধারাবাহিকতায় এ আয়াতেও মহান আল্লাহর সীমাহীন জ্ঞানের আরো কিছু উদাহরণ বর্ণনা করা হয়েছে। এখানে বুঝানো হয়েছে ছোট-বড়, প্রকাশ্য-অপ্রকাশ্য আল্লাহর কাছে কোন পার্থক্য নেই। মানুষ আস্তে করে বললেও তিনি যেমন শুনতে পারেন তেমনী জোরে বললেও তিনি তা শুনেন। এমন কি মানুষের মনে যা আছে তাও তিনি বুঝতে পারেন। বস্তু জগতে সব কিছুই তার জ্ঞানের আওতার মধ্যে রয়েছে, এমন কি মানুষ পঞ্চ ইন্দ্রীয় দিয়ে যা অনুভব করতে অপারগ, আল্লাহর কাছে তা সুস্পষ্ট। ফলে যারা বিশ্ব প্রতিপালক আল্লাহর উপর বিশ্বাস স্থাপন করেন, ইমান আনেন তারা পাপাচারে লিপ্ত হতে পারে না। কারণ তারা এটা বিশ্বাস করেন যে, গোপনে এবং অপ্রকাশ্যে যা কিছু করা হয় আল্লাহর কাছে তা গোপন নয়। তিনি সবই দেখেন এবং সবই জানেন। কাজেই পাপের শাস্তি এড়িয়ে যাওয়ার কোন পথ নেই।

    মহান আল্লাহ সর্বোত্তম ও পূর্ণাঙ্গ সত্তা। কোন অপূর্ণতা তাঁর জন্য অকল্পনীয়। এটাই ইসলামের উপস্থাপিত বিশ্বাস। এছাড়া আল্লাহ স্থান ও কালের উর্ধে। তিনি সময় বা কোন স্থানের গন্ডিতে আবদ্ধ নন