ইসলামী সূত্র

  • features

    1. home

    2. article

    3. সূরা রা’দ পাঁচ নং আয়াতের অনুবাদসহ সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা উপস্থাপন

    সূরা রা’দ পাঁচ নং আয়াতের অনুবাদসহ সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা উপস্থাপন

    সূরা রা’দ পাঁচ নং আয়াতের অনুবাদসহ সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা উপস্থাপন
    Rate this post

    পঞ্চম আয়াতে বলা হয়েছে- ” হে নবী আপনি যদি বিষ্মিত হন, তাহলে তাদের কথাই তো বিষ্ময়কর, (যারা বলে) মাটিতে পরিণত হওয়ার পরও কি আমরা নতুন জীবন লাভ করব? তারাই তাদের প্রতিপালককে অস্বীকার করে এবং তাদেরই গলদেশে থাকবে লৌহ-শৃংখল। তারাই নরকবাসী। সেখানে তারা চিরকাল থাকবে।”

    এই আয়াতে আল্লাহর রাসুলকে সান্ব্”না দিয়ে বলা হয়েছে, অবিশ্বাসী কাফেররা যদি আপনার নবুয়্যত বিশ্বাস করতে না চায় তাহলে আপনি বিষ্মিত হবেন না, আসলে তাদের কথাই তো বিষ্ময়ের ব্যাপার। তারা বলে মৃত্যুর পর মাটিতে বিলিন হয়ে যাওয়ার পর আবার কিভাবে আমাদেরকে জীবিত করা হবে? তাদের এতটুকু সম্বিত নেই যে, যে আল্লাহ মানুষকে অনস্তিত্ব থেকে অস্তিত্বে এনেছেন সেই আল্লাহ কি মৃত্যুর পর তাদেরকে পুনরুজ্জীবিত করার ক্ষমতা রাখেন না? সৃষ্টি করার চেয়ে পুনরুজ্জীবিত করা তো আরো সহজ ব্যাপার।
    এই আয়াতে অবিশ্বাসীদের সম্পর্কে বলা হয়েছে, সত্যবিমুতার কারণে আল্লাহর অস্তিত্বের উপরই তাদের বিশ্বাস নেই, ফলে আপনার নব্যুয়ত ও পরকালকে তো তারা অস্বীকার করবেই।
    এই আয়াত থেকে আমরা এটা উপলব্ধি করতে পারি যে, আল্লাহর অস্তিত্বে অবিশ্বাসী যে কোন মানুষ কুপ্রবৃত্তির দাসে পরিণত হয়, ফলে পরকালে তার জন্য নরক অবধারিত।
    এছাড়া আরেকটি বিষয় হচ্ছে যারা আল্লাহ ও পরকালে বিশ্বাস করে না তারা কখনো সৎ কাজ করলে তার উদ্দেশ্য হয় সম্পূর্ণ জাগতিক। ফলে আল্লাহ এ ধরণের মানুষকে এই জগতেই তার পুরুস্কার দিয়ে দিবেন, পরকালে তার জন্য কোন পুরস্কার থাকবে না, বরং কুফরীর কারণে পরকালে তাকে জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হবে।